a thought, my experience

আমি সেলফোন

কি হে , উঠলে ?অ্যালার্ম তো লাগিয়েছিলে তাও আবার স্নোজে দিয়ে ,তবুও ঘুম ভাঙলো না ? ভাঙবে আর কি করে , সবেতো সকাল ৮ টা আর শুলেই তো রাত দুটোয় । আবার মাঝে মাঝে ঘুম ভেঙেই হাতে নিয়ে আমাকে দেখছিলে , না আমাকে না , ওই মেসেজ এসেছে কি না দেখছিলে ,তাইতো ? মেসেজ , অফিসের হোক , ফ্যামিলির হোক , বন্ধুদের হোক , ঘুমের মধ্যে দেখতে ভালো লাগে তোমাদের ? আর আমার যে কি বিরক্ত লাগে , নিজেরা তো রেস্ট নাও ই না আবার আমাকেও নিতে দাও না । কাকে আর দোষ দেব !তোমরা আমাকে নিয়ে যা শুরু করেছো , বলতে পারো থামবে কোথায় ? তোমাদের কাছে আমি তো একটা জড়পদার্থ , কিন্তু তোমরা তো সজীব , তোমাদের জীবনের দাম আছে । তাই আমি আর থাকতে না পেরে তোমাদের ভালোর জন্যই কিছু বলতে চাই , অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে চাই ,শোনবার সময় আছে কি ? না শুনলে অবশ্য তুমি ই পস্তাবে , আমার কলা……

১ ) দূরে রাখো – আমাকে দূরে রাখো , শরীর থেকে , মন থেকে । আমার শরীর থেকে যে রেডিয়েশন বেরোয় সেটা তোমাদের শরীরের জন্য ভালো নয় । তাই আমাকে বেশি সঙ্গী করো না । সেরকমই মনের মধ্যে জটলা, পাঁচ প্রকার সন্দেহ, অবিশ্বাস সব শুরু হবে আমাকে কাছে রাখলে । সকলের সাথে সম্পর্ক ভালো রাখতে বেশি বন্ধনে জড়িয়ে পরো না , নিজে সবসময় একটা সুন্দর দূরত্ব রেখে চলো সবার সাথে ।

২) চেঁচিয়ে কথা বোলো না – আরে আমার মধ্যে দিয়ে লোকে এমনিতে ভালোই শুনতে পায় । তাই লোকজনের সামনে হাট করে কথা বলার দরকার নেই । নিজের ব্যবহার সুন্দর হবে এটা মেনে চললে । শান্ত ভাবে কথা বলে নিজের ধৈর্য্য কে বাড়াও , অন্যকেও জায়গা দাও কথা বলতে ।

৩) বারেবারে মনে করানো – আমার মধ্যে দিয়ে এই জিনিষটা প্রায়ই করে থাকো , আর আমার ও তোমাদের সত্যিকার উপকার করে ভালো লাগে । আচ্ছা, এইরকম বারেবারে তোমরা কি তোমাদের মনগুলোকে দেখো ? মানে , তোমাদের মনের দিক কোনদিকে ?কেমন চিন্তা-ভাবনা করছে? ইতিবাচক না নেতিবাচক ? প্লিজ , একটু খেয়াল রেখো , উপকার পাবে ।

৪ ) আপ ব্যবহার – কি দারুন এই আপ গুলো , আমার স্ক্রিনে যখন জমা হয় তখন আমার আনন্দে নাচতে ইচ্ছা করে , কত রকমের , কত কাজের তারা । নতুন এই টেকনোলজিটার মতো তোমরা যদি তোমাদের জীবনে পুরানো কিছু আপ ব্যবহার করো তো কেমন হবে ? বুঝতে পারলে না তো । আমি আসলে তোমাদের জীবনে একটু দয়া, ভালোবাসা, শ্রদ্ধা এইরকম ধরণের আপ গুলো ব্যবহার করতে বলছিলাম । এইগুলো করলে , আমার মনে হয়, তোমরা বেশি শান্তি পাবে ।

৫ ) চার্জ দাও ঠিকঠাক – আমার চার্জ ঠিক আছে কি না তোমরা ভালোই খেয়াল রাখো , দরকার হলেই তো বসিয়ে দাও চার্জ করতে । আমি বলছি , তোমরা নিজেদের ঠিকঠাক চার্জ করো তো ? মানে , নিজের যা বেশি ভালো লাগে , যা করলে খুব আনন্দ পাও , এরকম কিছু একটা অবশ্যই কীন্তু সারাদিনে একবার ও করো । যেমন , গান গাওয়া,নাচ , মেডিটেশন , আঁকা এইসব আর কি । এতে তুমি চার্জ পেয়ে যাবে নতুন উদ্যম নিয়ে কাজ করার ।

৬) স্টোরেজ ঠিকঠাক– আমার মধ্যে তোমরা কিন্তু এই কাজটা বেশ গুছিয়ে করো , কোথায় কি রাখলে , নানা ফোল্ডারে , মনে রাখো আর দরকারে কত সহজেই পেয়ে যাও ।এইরকম করে তোমরা নিজেদের জীবনে ও রাগ, দুঃখ , হতাশা, আনন্দের আলাদা আলাদা ফোল্ডার করতে পারো আর ভুলেও যেন একটার সাথে অন্যটাকে মিশিয়ে দিয়ো না । দেখবে এতে তোমাদের জীবন কত সহজ হয় গেছে ।

৭ ) যথাযথ নির্বাচন – যাই ফটো , ভিডিও তোলো , সবসময় ই দেখি তোমরা যেগুলো নিজেদের ভালো লাগে সেগুলো রেখে বাকি গুলোকে ডিলিট করে দাও । এটা বেশ ভালো , আমিও খানিক নিশ্চিন্ত হই, ” জঞ্জাল গেলো ” ভেবে । আচ্ছা , এই জিনিসটা তোমরা নিজেদের জন্য করতে পারো না ? তোমাদের মনের , স্মৃতির ও তো একটা ধারণ ক্ষমতা আছে তাই না ? যেগুলো দরকার , সেই ভালো জিনিসগুলো রেখে , রাগের -দুঃখের জিনিসগুলোকে ডিলিট করে দেখো দেখি , কি শান্তি আসবে জীবনে ।

৮ ) নীরবতা
– আমাকে কিন্তু তোমরা মাঝে মাঝে সাইলেন্ট মোডে রেখে দাও , আমার বেশ আরাম লাগে তখন , একটু বিশ্রাম ও হয় । মিষ্টিঘুম দিয়ে দিতে পারলে কার না ভালো লাগে বোলো ? তোমরা ও কিন্তু মাঝে মাঝে ই অভ্যাস করো । নিজের অহং , বুদ্ধি এমনকি আমাকেও ,সব দূরে রেখে নিশ্চিন্ত মনে অন্য কাউকে সময় দিয়ো , তার কথা শুনো । এতে সে ও খুশি হবে আর তুমিও আনন্দ পাবে ।

৯ ) সুইচ অফ – খুব দরকার না থাকলে রাত্রের দিকে আমাকে অফ করে রাখাই ভালো । আমার ক্ষতিকর রেডিয়েশন থেকে তোমরা নিরাপদে থাকবে । আমার ও বেশ নিশ্চিন্তি লাগে তখন , সারাদিনের নানা আজেবাজে শব্দ থেকে পরিত্রান । এইরকম ই তোমরা ও ভালো করে ঘুমাতে যাও , আজেবাজে চিন্তা থেকে মুক্ত থাকো । পরের দিন শুরু করার জন্য , ” সাউন্ড স্লিপ ” খুব দরকার সেটা আর আমার থেকে ভালো কে জানে ।

১০ ) আমি বিশ্ব নোই – আমি যতই তোমার কাছে সারা বিশ্বের খবর এনে দেই , আমি কিন্তু নিজে বিশ্ব নোই , তার একটা কণিকা মাত্র । তাই আমাকে তোমার ধ্যানজ্ঞান করে তুলো না । আমি ই তোমাদের সতর্ক করে বলছি , আমি তোমাদের মাথা খেয়ে নিতে পারি যত চালাক ই হও না তোমরা । তোমাদের সব সম্পর্ক শেষ করে দিতে পারি , ইন্টারনেট এ অনেক বন্ধু থাকলেও ।তাই , আমাকে মাথায় চড়তে দিয়ো না , শুধু দরকারেই ব্যবহার করো । অন্য সময় , সত্যিকারের বন্ধু পাতাও , নিজের সাথে – পরিবারের সাথে সময় কাটাও । আর তার সাথে মাথার উপর ভগবান তো আছেই ।

Tagged , ,

About Antara Samanta

Myself is Antara Samanta, a wanna be writer in homemaking style with an idea to embrace the indifference in a classy dynamic way. Antara is passionate about reading,singing and writing-in that way.
View all posts by Antara Samanta →