kids

বাচ্চার ভুলগুলো

আপনি অন্যকে বোঝানোর চেষ্টা করতে পারেন যে আপনার শিশু বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে ভালভাবে পরিচালিত একটি ছোট্ট ব্যক্তি। তবে আপনি যদি তাদের লালন-পালনে ভুল করেন তবে নির্দিষ্ট পরিস্থিতিতে সেগুলি বেশ স্পষ্ট হবে।কিরকম পরিস্থিতি ? পড়ে দেখুন

১)”এখন বাধা দেবে না!” কাজ করে না

পারিবারিক নৈশভোজ করার সময় বা সহকর্মীদের সাথে ফোনে কথা বলার সময় আপনার বাচ্চাকে প্রতিদিন এবং বাড়িতে কথোপকথনে তাদের পালা করে অপেক্ষা করতে শিখান।
উদাহরণস্বরূপ, কাউকে ফোন করার আগে, আপনার সন্তানকে বলুন:
“আমি এখন ফোনে কথা বলব, আর আমাকে বাধা দেওয়া হবে না। যখন ঘড়ির উপরের হাতটি সেই নাম্বারে পৌঁছবে তখন আমি কথা শেষ করব!”

২) আপনার শিশু দোকানে পণ্য কেনার জন্য জোর দেয়

আপনার সন্তানের পক্ষে তাদের ইচ্ছাগুলি নিয়ন্ত্রণ করা শিখানো গুরুত্বপূর্ণ কারণ বিক্রি হওয়া সমস্ত কিছুই আপনি কিনতে পারবেন না এবং আপনার সত্যিকারের প্রয়োজন ও নেই। তারা মনে করে আপনি কোনও সিস্টেম ছাড়াই কোনও দোকানে জিনিস তুলছেন; তারা বুঝতে পারে না আপনার কাছে কেনার জন্য পণ্যগুলির একটি তালিকা রয়েছে। তাই কেনাকাটা করতে যাওয়ার আগে প্রস্তুত থাকুন ও তাদেরকে ও পদ্ধতিটি বুঝিয়ে বলুন।

উপায় হলো ,এক সাথে পণ্যগুলির তালিকা তৈরি করুন (আপনার শিশু এখনও পড়তে না পারলে ছবি আঁকুন)। আপনি তালিকাটি অনুসরণ করছেন তা দেখাতে আপনার শিশুটিকে এই কাগজের দায়িত্বে থাকতে দিন।

৩) বিনীত হতে শেখানো

আপনি যত তাড়াতাড়ি আপনার সন্তানকে ভদ্রতা শেখানো শুরু করেন, তত ভাল। তবে কেউ কেউ এটিকে সহজেই বুঝতে পারে অন্যরা পারেন না। আপনার শিশুকে ভদ্র শব্দের যাদু দেখান: যতক্ষণ না তারা “দয়া করে” বা প্লিজ কথাটি না বলে ততক্ষন তাদের বলা কিছু করবেন না। আপনার সন্তানের মনে রাখার অপেক্ষা না করে প্রথমে “হ্যালো,” “বিদায়” এবং “আপনাকে ধন্যবাদ” বলুন , বলতে থাকুন । বলুন এর ইংরিজির তর্জমা ও।

৪) থামতে হবে কোথায়

একটি শিশু এটি বুঝতে অসুবিধা বোধ করে যে আপনার কাছে জানা কিছু কথা অন্যদের বলা উচিত নয়। কারণ তারা লজ্জা বা বিব্রতবোধ ব্যাপারটি জানে না এবং ভুল সময়ে বলা ভুল কথার প্রতিক্রিয়া নিয়ে তাদের কোনও অভিজ্ঞতা নেই। অন্যদিকে, পিতামাতারা এই ঘটনা থেকে ভাল ভুগতে পারেন।

একটি “হোম সিক্রেট” ধারণাটি চালু করার চেষ্টা করুন যার অর্থ আপনি শেখাচ্ছেন কি কথা বা কাজ অন্য লোকদের বলা উচিত নয়।

৫) বাবা-মা ছাড়া ভয়

যখন বাবা-মা তাদের স্বাভাবিক ক্রিয়াকলাপের মধ্যে বাধা দেয় তখন একটি শিশু তাদের বাবা-মায়ের পাশে না থাকলে খুব ভয় পায়। তাদের মাথায় একটি সেটিং রয়েছে: আমি যদি স্লাইডটি চড়ি তবে আমি পড়ে যাব বা আমার কাপড় ছিঁড়ে যাব , বাবা-মা ও ভয় পাবে ইত্যাদি

এ কারণেই যখন কোনও ভাল বুঝদার একজন পিতা-মাতার উচিত শিশুটিকে নির্দ্বিধায় খেলার মাঠে যেতে দেয়া একটি সতর্কতার পাঠ দিয়ে। তখন শিশু ও সম্ভবত ক্ষণিক আনন্দের জন্য তাদের “জীবন” ঝুঁকি না নেওয়ার পছন্দ করবে।

৬) তারা অন্যান্য প্রাপ্তবয়স্কদের কষ্ট দেয়

কোনও শিশু যদি অপরিচিত ব্যক্তির সাথে সহজেই কথোপকথন শুরু করতে পারে তবে এটি পরিবারে আস্থার লক্ষণ। তবে এর অর্থ এইও হতে পারে যে শিশু জানে না প্রাপ্ত বয়স্কদের অন্যান্য আগ্রহ ও থাকতে পারে। একটি উদাহরণস্বরূপ বলা যায় যে শিশুটির পিতামাতারা যা চান বা যা প্রয়োজন তা করতে পারে না কারণ তারা তাদের ছোট্ট বাচ্চার সাথে সমস্ত সময় ব্যয় করার চেষ্টা করে।এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই যে শিশুটিও অন্য লোকেরা যে অন্য কিছু চায় তা কল্পনা করতে পারে না আর নিজেকেই বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে ভাবে। আর এথেকে স্বার্থপরতা তৈরী হয়।
এক্ষেত্রে বাচ্ছাটিকে বাবা-মার একটু কম সময় দিয়ে বুঝিয়ে দেয়া উচিত যে অন্য কাজ ও গুরুত্বের।

ছোট থেকেই এই ধরণের বিষয়গুলি নিয়ে সচেতন থাকলে আমরা একটি আদর্শ পূর্ণবয়স্ক মানুষ পেতে পারি।

সবাই ভালো থাকেবন , সুস্থ থাকবেন।

Tagged

About Antara Samanta

Myself is Antara Samanta, a wanna be writer in homemaking style with an idea to embrace the indifference in a classy dynamic way. Antara is passionate about reading,singing and writing-in that way.
View all posts by Antara Samanta →

Leave a Reply