a thought

বেড়ানোর উপকারিতা

১) পৃথিবীটা মনে হয় বেশ বড়ো আর বৈচিত্রে ভরা |
২) ৯৯% লোকজনকে নিজের মতো বলেই মনে হবে | তাদের আবেগ, প্রয়োজন এগুলোকেও খুব চেনা লাগবে | তখন ঠিক-ভুল ব্যাপারগুলো আপেক্ষিক বলে মনে হবে |
৩) নিজের কালচারের সাথে অন্যদের তুলনা করে কোনটা ভালো, কোনটা মন্দ সহজেই বোঝা যায় | মন্দটাকে সরিয়ে ভালোটাকে নিতে পারলে নিজেকে সহজেই সমৃদ্ধ করা যাবে |
৪) ইতিহাস পড়ে যে কোনো জায়গার সঠিক ধারণা হয় না , জায়গাটায় গিয়ে তবে কিছুটা বিচার করা যায় আলো|-অন্ধকারময় দিকগুলো |
৫) যদি একা একা ঘুরে স্থানীয় মানুষের সাথে যোগাযোগ করা যায় তবে তাদের বন্ধুত্ব পূর্ণ ব্যবহারে বেড়ানোটা অবিস্মরণীয় করে রাখে |
৬) কখনো কখনো শুধু জনপ্রিয় জায়গা ছেড়ে কিছু নতুন অন্য ধরণের জায়গায় গেলে নানা নতুন অভিজ্ঞতায় বেড়ানোটা আরো শিক্ষণীয় হয়ে ওঠে |
৭) টাকাপয়সা নিয়ে খুব বেশি চিন্তা না করে বুঝেশুনে খরচ করতে পারলে আত্মবিশ্বাস জন্মায় |
৮) আরামপ্রদ জীবন ছেড়ে অনিশ্চয়তার পথে এগুলো ধীরে ধীরে নিজের প্রতি আস্থা গড়ে ওঠে যা যে কোনো পরিস্থিতেই মানিয়ে নিতে সাহায্য করে |
৯) প্রকৃতি আর বাস্তবতার সাথে পরিচয় জীবনের শিক্ষাকে সম্পূর্ণ করে তোলে |
১০ ) পায়ে হেঁটে জায়গাটাকে চেনা, নতুন মানুষদের সাথে আলাপ মূল্যবান স্মৃতি হিসাবে থেকে যায় |
১১ ) ক্যামেরা, মোবাইল অন্যসব টেকনোলজির উপর ভরসা না করে নিজের চোখকে গুরুত্ব দিলে ভ্রমণ বেশির ভাগ ক্ষেত্রে আনন্দদায়ক হয়ে ওঠে |
১২ ) ভাষা না জানলেও শুধু ব্যবহার, আবেগ দিয়েও অন্য মানুষের সাথে কথাবার্তা বলা যায় |
১৩ ) ভ্রমণ জীবনের মধ্যেই আরো একটা জীবন খুঁজে দেয় |
১৪ ) তবে বেড়ানো শেষে বাড়ি ফিরে আসার পর নিজের বিছানা, ঘরের প্রতি নতুন করে ভালোবাসা হয় |

About Antara Samanta

Myself is Antara Samanta, a wanna be writer in homemaking style with an idea to embrace the indifference in a classy dynamic way. Antara is passionate about reading,singing and writing-in that way.
View all posts by Antara Samanta →