knowledge, way of living

স্বভাব খারাপ

জাঙ্ক ফুড খাওয়া , স্মোকিং করা , ড্রিংক করা এই গুলোই সাধারণত আমরা খারাপ স্বভাব হিসাবে দেখি | কিন্তু জানা আছে কি , অনেক সময় আমরা প্রায় প্রতিদিন যে সব কাজ করে থাকি সেগুলোর মধ্যে কিছু জিনিস ও খারাপ স্বভাবের মধ্যেই পরে | কৌতুহলী হয়ে একটু দেখে নেই সেরকম কি কি আছে …

১) টাইট জামা পরে শোয়া – ঘুমানোর সময় ভুলেও বেশি জামা-কাপড় টাইট জামা পরে শোয়া একেবারেই উচিত নয় | শরীরের রক্ত সঞ্চালন ক্ষমতা কমে গিয়ে শরীরকে গরম করে দেয় , অস্বস্তি বাড়িয়ে দেয় | ঘুম না ভেঙে থাকলেও , আমাদের গভীর ঘুমের বাধা দেয় |

২) ঘষে দাঁত মাজা – অনেক সময় আমাদের ধারণা হয় যে ব্রাশ যদি বেশ ঘষে ঘষে করি তবে বোধহয় দাঁত বেশি পরিষ্কার হবে | এতে ভালো কিছু হবার বদলে বিপদ বাড়ে , দাঁতের মাড়ি বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয় | দাঁতের এনামেল ও নষ্ট হয়ে যায় |

৩) বহুকাজ একসাথে – অতি ব্যস্ত দুনিয়ায় যখন আমরা একসাথে অনেক রকম কাজ করার চেষ্টা করি তাতে আমাদের কোনো কাজ ই সুন্দর করে করা হয়ে ওঠে না | আসলে একসাথে অনেক কাজ করার ক্ষমতা খুব কম লোকজনের ই থাকে , রিসার্চে জানা গেছে মাত্র ২ % লোকের এই ক্ষমতা থাকে | তাই একটি কাজ ই একসময়ে করলে তার দক্ষতা বাড়ে |

৪) গভীর চিন্তা – কোনো কিছুর সমাধান খুব বেশি চিন্তা করে করা যায় না বিশেষ করে যেখানে অন্য লোকেরাও জড়িয়ে থাকে | তাই সেক্ষেত্রে নিজের যাতে উন্নতি হয় সেটা নিয়ে ভাবাই উচিত | এর মানে এই নয় যে সব কিছুর ব্যাপারেই উদাসীন হয়ে যাওয়া | শুধু নিজের চিন্তার নিয়ন্ত্রণ রেখে সুস্থ থাকা , এটাই ভালো স্বভাব |

৫) বিপত্তি নিয়ে ভাবা – চিন্তাটাকে যখন আমরা আরো বেশি করে ঋণাত্মক করে ফেলি তখনি সেটা আমাদের শরীরকে নাড়িয়ে দেয় | দুনিয়ার সমস্যার সমাধান বাজে চিন্তার দ্বারা সমাধান তো হবেই না , উল্টে আমাদের শরীরের স্ট্রেস হরমোন গুলো মাথা চারা দিয়ে উঠে আমাদের শরীরের আর মনের বারোটা বাজিয়ে দেয় | শুধু বলুন , ” সব ঠিক আছে ” আর সময় পেলেই রিলাক্স করতে থাকুন |

৬) দীর্ঘসূত্রিতা – আমাদের জীবনের অন্যতম খারাপ স্বভাব এটি , সোজা বাংলা কথায় , ” হচ্ছে-হবে ” মনোভাব | অনেক কাজ যদি আমরা শেষ সময় পর্যন্ত না রেখে , সময়ের আগেই শেষ করে ফেলি তবে আমাদের কাজের ক্ষেত্রে , স্কুলে কখনোই কোনো সমস্যা হবে না | এমনকি অনেক ভালো কাজ ও আমরা করে উঠতে পারি না এইরকম মনোভাবের জন্য |

৭) শারীরিক ভাষা – আমরা অনেকেই জানি এই কথাটি , ” বইয়ের কভার দেখে বইয়ের বিচার করা উচিত না ” | কিন্তু বেশির ভাগ সময়েই অন্য মানুষেরা আমাদের শরীরের ভাষা বুঝেই আমাদের সাথে সেই মতো ব্যবহার করে | তাই নিজেদের ” বডি ল্যাংগুয়েজ ” এর ব্যাপারে সচেতন হয়ে থাকা উচিত | রাগী চোখ-মুখ , বিশ্রী করে হাঁটা-চলা , অভদ্র ভাবে কথা বলা এগুলো নিয়ে সচেতন হয়ে থাকা উচিত |

৮) ওষুধ খাওয়া – নিজের শরীর ভাব-গতিক বুঝে যখন তখন নানা ওষুধ খেয়ে নেয়াটা মোটেই ভালো স্বভাবের মধ্যে পরে না | এতে সাময়িক রোগ হয়তো ভালো হয়ে যায় কিন্তু ধীরে ধীরে আমাদের মনোযোগ ক্ষমতা কমতে থাকে , স্মৃতিশক্তি কমে যায় , একটু খিটখিটে হয়ে পরি | শরীরের মধ্যেও আলসার জাতীয় রোগের সৃষ্টি হয় তাই ভেবেচিন্তে এই কাজটি করুন |

৯) উঁচু – নিচু জুতো – মেয়েরা বেশ খুশি ই থাকে হাই-হিল জুতো পরতে পারলে , পা দেখতে লম্বা লাগে | কিন্তু এটি প্রায়ই পরতে থাকলে আমাদের হাঁটুতে চাপ পরে কারণ হিলের জন্য ব্যালান্স করতে আমাদের শরীর সামনের দিকে ঝুঁকে আসে চলার সময় | পায়ের পাতা ও সমান ভাবে শরীরের চাপ নিতে পারে না |
আবার অনেক সময় আমরা ফ্লাট জুতো পরি , এতে ও অসুবিধা হচ্ছে যে আমাদের গোঁড়ালির উপর শরীরের ওজনের চাপ বেশি করে পরে | তাই বুদ্ধি করে , এই ধরণের জুতোগুলো ঘুরিয়ে ফিরিয়ে পরাই ভালো , প্রতিদিন নয় |

১০) ব্রেকফাস্ট না করা – সকালে উঠে আমাদের অনেকেরই ই অভ্যাস আছে চা খাওয়া , পেট ভর্তি খাবার না খাওয়া | খালি পেটে চা খাওয়া , তাও আবার চিনি দিয়ে যদি হয় তবে সেটা আমাদের শরীরের সুগার লেভেল বাড়িয়ে দেয় , ইন্সুলিন হরমোন ও বেড়ে যায় ফলে আমাদের ওজন বৃদ্ধি ও হয় | তাই উপযুক্ত ব্রেকফাস্ট বানিয়ে নিয়ে প্রথমে খান আর তারপর চা পান করুন , দীর্ঘজীবী হবেন |

Tagged , ,

About Antara Samanta

Myself is Antara Samanta, a wanna be writer in homemaking style with an idea to embrace the indifference in a classy dynamic way. Antara is passionate about reading,singing and writing-in that way.
View all posts by Antara Samanta →