my experience

কিশোরী মা

স্বামীর চাকরিসূত্রে আমি প্রবাসী তবে আমি অফিসযাত্রী নই | সকাল বিকেল প্রতিদিনের ব্যস্ততম রুটিন থেকে মুক্তি কিন্তু অফুরন্ত সময় কাটানোর রোগে ভুক্তভোগী | বিশেষ করে দুপুরের দিকে ঘরের প্রতিটি জানালায় দাঁড়িয়ে বাইরের আকাশ , লোকজন র প্রতিবেশীদের খবর নেওয়ার অভ্যাস হয়ে গেছে | আর এককম করতে করতেই পাশের আপার্টমেন্ট এর দিকে বেশি নজর পড়ে কারণ খুব সুন্দর মতো দুটো ছোট ছোট বাচাচা আছে সেই বাড়িতে | ওদের খেলাধুলা, হাসি এই নিস্তব্ধ জায়গাটায় প্রাণ দেয় | একটা অদৃশ্য বন্ধুত্ব হয়ে গেছে ওদের সাথে | কথা তেমন বলি না , হাই / হ্যালো ছাড়া কিন্তু বাইরে দেখতে পেলেই ওরা একবার হাত নাড়বেই আর এটা বেশ মজা লাগে |

একটা জিনিস নিয়ে আমি আরো কৌতহুলী যে ওদের যারা অভিভাবক তারা কিন্তু বেশ বয়স্ক | তবে কি ওদের অনেক দেরিতে বাচ্চা হয়েছে ? একদিন ওদের বাড়িতে এক ১৫/১৬ বছরের মেয়েকে দেখলাম | মেয়েটি সম্ভবত মাতাল ছিল আর খুবই উত্তেজিত হয়ে ফোন এ কথা বলছিলো | হঠাৎ বাচ্চা ছেলেটা “মামি” বলে ওকে জড়িয়ে ধরলো আর মেয়েটি সেই হাত রেগে ছাড়িয়ে দিলো | বুঝলাম ওই কিশোরী মেয়েটি ই ওদের মা | বাচ্চাগুলো রয়েছে দাদু-দিদার কাছে |

অপ্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় মা হওয়াটা একটা সামাজিক সমস্যা যেটা নিয়ে নিউজ এ এখন প্রায়ই লেখা  হয় | সভ্য দেশেও এটা মহামারী হয়ে যাচ্ছে | পরে খবর নিয়ে জেনেছিলাম মেয়েটি নাকি ড্রাগ এর নেশায় আসক্ত| মাঝে মাঝে বাড়িতে আসে কিছু টাকা পয়সা পাবার আশায় বাকি ছেলে -মেয়ে নিয়ে কোনো অনুভূতি নেই ওর | হয়তো মা হতে চায়নি ,অসাবধানে হয়ে গেছে | আমি কখনো ওকে নিয়ে ভাবি আর বুঝতে পারি যে সত্যিই এই বয়সে তো মা হবার আনন্দ , অনুভূতি কিছুই তৈরি হবার নয় কারণ আমিও ওই বয়স পেরিয়ে এসেছি | হ্যাঁ, হয়তো শারীরিকভাবে সমর্থ কিন্তু মন সাথে না দিলে তো কোনো বন্ধন ই তৈরি হবে না বাচাচাদের সাথে |
আর বাচ্চাগুলোর কথা কি আর বলবো ? ওরা যত বড়ো হবে তত হয়তো বুঝতে পারবে জীবনে ওরা কি পেলোনা !! দাদু-দিদার সাথে থেকে ভালোবাসা, আশ্রয় সবই পাচ্ছে কিন্তু মায়ের ভালোবাসা, স্নেহের তো তুলনা হয়না | আচ্ছা, মেয়েটি যতই কিশোরী মা হোক না, একটু কি ভালো মা হয়ে উঠতে চেষ্টা করবে না ?? খুব ভালো হতো তাহলে….

Tagged , , ,

About Antara Samanta

Myself is Antara Samanta, a wanna be writer in homemaking style with an idea to embrace the indifference in a classy dynamic way. Antara is passionate about reading,singing and writing-in that way.
View all posts by Antara Samanta →